🙏🏻স্বামী রঙ্গনাথানন্দের জীবন দর্শন🙏🏻

Spread the love

১}তপস্যা করার জন্য কোথাও যাব এমন ভাবনা আমি কখনও করিনি l আমি একথাই ভাবতে শিখে ছি যে , যেদিন থেকে আমি শ্রী রামকৃষ্ণ-সঙ্ঘের সঙ্গে নিজেকে যুক্ত করেছি সেদিন থেকে আমার তপস্যা শুরু হয়েছে এবং আমার সমগ্র জীবন ও কর্মই তপস্যাl

২} গুরুপ্রদত্ত মন্ত্রের মাধ্যমে ঈশ্বরের নাম করবে বারবার l তুমি একা থাকলে তাঁর নাম উচচস্বরে করতে পার l সেই শব্দতরঙ্গ দিয়ে তোমার মনকে পরিপূর্ণ করো l ঈশ্বরীয় নামে মহান শক্তি আছে ,তবে তা আমাদের অনেক সময়ই অব্যক্ত থাকে l বারংবার মন্ত্র উচচারণের মাধ্যমে মন্ত্রশক্তি মনের অন্তদেশে প্রবেশ করে দুষ্ট চিন্তার অবসান ঘটায় l

৩} কাজ করো ,কাজের সঙ্গে অবসরও উপভোগ করো ,কাজকে কখনও ক্লান্তিকর করে তুলবে না এবং কাজের পরিধির বাইরে মনকে হাল্কা রাখতে চেষ্টা করতে হবেl যদি হৃদয়ে কর্মের জন্য অনুরাগ থাকে তাহলে কাজও আনন্দময় হয়ে ওঠে ও সব কিছুই সুন্দর হয়ে ওঠেl

৪} মানুষ স্বরূপগত ঐশ্বরীক ও আধ্যাত্ম ভাবে ভাবাপন্ন -কিন্ত সেই ভাব সুপ্ত থাকে l আমাদের সেই ঐশ্বরিক ভাবকে বিকশিত করতে হবে নিজের নিজের জীবন ও কর্মে ; গড়ে তুলতে হবে নৈতিক দৃঢ়তা ও ইচছাশক্তি l

৫} মানুষের মধ্যে অন্তনিহিত দেবত্বকে পুজো করার সঠিক উপায়টি দুটো শব্দের মাধ্যমে বোঝানো হয়েছে l “দানমানাভ্যাম”–দান এবং মানের মাধ্যমে l অসুস্থ ব্যক্তিকে চিকিৎসা-দান করতে হবে l দরিদ্র ব্যক্তিকে অন্নদান বা কর্মদান করতে হবে এবং এই দান-সম্পাদানের ক্ষেত্রে –ঐ ব্যক্তিকে সম্মান অর্থাৎ মান দিতে হবে l নিজেকে বড় বা শ্রেষ্ঠ মনে করে অন্যের প্রতি কৃপা করা চলবে না l

৬} আমরা দূষণ নিয়ে আলোচনা করি–পরিবেশ দূষণ ,জল দূষণ ,ইত্যাদি কিন্ত এই সময়কালে মনের দূষণই সব চাইতে মারাত্মক
দূষণ l মন সর্বদাই কলুষিত হচছে l এই জগৎ-সংসার প্রতিনিয়ত মনের কাছে দূষণের তরঙ্গ পাঠিয়ে চলেছেl তাই উপনিষদ আমাদের উপদেশ দিয়ে বলেছেন আমরা যেন মনের ভিতরে পৃথিবী থেকে যা আহরণ করে রাখি,তা
গ্রহন করার আগে শোধন করে নিই l উপনিষদের এই শিক্ষা যথার্থভাবে গ্রহন করলে মন শুদ্ধ থাকবে l আমাদের দেহ-মন উভয়েরই যত্ন নিতে হবে , কিন্ত মানসিক- আহার দৈহিক আহারের তুলনায় অনেক গুরুত্বপূর্ণ l

৭} সমস্যা যত জটিলই হোক না কেন ,মানুষ করতে পারে না এমন কোন কাজই নেই l মানুষের মধ্যে অসীম সম্ভাবনা নিহিত আছে l এটাই হল স্বামী বিবেকানন্দের “বৈদান্তিক অধ্যাত্মবাদ” l

৮} আমাদের জীবনে কোন কিছু পরিত্যগ করাই কঠিন আর অহংকে পরিত্যগ করা সব চাইতে কঠিন l কিন্ত সত্যকে উপলব্ধি করার জন্য এই ক্ষুদ্র অহং টিকে সর্বাগ্রে পরিত্যাগ করতে হবেl

–স্বামী রঙ্গনাথানন্দ✓ TAKEN FROM FACEBOOK

PUBLISHED BY SHRUTI ADHYA KUNDU MARKETING OFFICER OF SYCN.

 

 


Spread the love